অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো করার উপায়

সারাবছর পড়াশোনায় মনোযোগী না হয়ে যখন পরীক্ষা খুব নিকটবর্তী চলে আসে, তখন আমরা অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো করার উপায় খুঁজতে থাকি। কিভাবে অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করা যায়, অনেকে তো আবার এমনও উপায় খুঁজে যে কিভাবে না পড়ে পরীক্ষায় পাস করা যায়। আসলেই কি না পড়ে পরীক্ষায় পাস করা যায়?

হ্যাঁ, না পড়ে পরীক্ষায় পাশ করা সম্ভব। যদি আপনার স্মৃতিশক্তি ভালো হয়ে থাকে এবং আপনি ক্লাসে মনোযোগী হয়ে থাকেন তাহলে তাহলে না পড়েও পরীক্ষায় পাস করা যায়। আপনি যদি লক্ষ্য করেন তাহলে দেখতে পাবেন যে আপনার আশেপাশে এমন অনেক সহপাঠী রয়েছেন যারা ক্লাসে অনেক মনোযোগী এবং নিয়মিত ক্লাস করেন। কিন্তু বাসায় খুব অল্প সময় পড়াশোনা করেন এবং পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করে।

আসলে অল্প করে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করা যায় যদি আপনি ক্লাসে মনোযোগী হন এছাড়াও আরও অনেক উপায় আছে কিভাবে অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করা যায়। আজকে আমি আপনাদের সাথে এ বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করব যে কিভাবে অল্প সময়ে আপনি পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবেন।

অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো করার উপায়,পরীক্ষায় ভালো করার উপায়,পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জনের টেকনিক,না পড়ে পরীক্ষায় পাশ করার উপায়

আরও পড়ুনঃ

আমি কিছু টিপস শেয়ার করব যেগুলোর মাধ্যমে আপনি অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবেন। যদি আপনার পরীক্ষা খুব নিকটবর্তী হয়ে থাকে এবং আপনি অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে চান তাহলে এই টিপসগুলো অনুসরন করলে আপনি অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবেন।

আপনি জানলে অবাক হবেন যে, প্রায় ৯৯% শিক্ষার্থী অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে চায়। আসলে সবাই ভাল রেজাল্ট করতে চাই কিন্তু কেউ পড়তে চাই না। যাইহোক, চলুন আর কথা না বাড়িয়ে টিপসগুলো জেনে নেই যে কিভাবে অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করবেন।

পোস্ট সূচীপত্রঃ

অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার উপায়

আপনি যেহেতু এই পোস্টটি পড়েছেন তার মানে আমি ধরে নিচ্ছি আপনি অবশ্যই অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার উপায় খুঁজছেন। কিন্তু আবার আপনার মনে হয়তো প্রশ্নও জাগতে পারে যে আসলেই কি অল্প পড়ে পরীক্ষায় পাস করা সম্ভব বা না পড়ে পরীক্ষায় পাস করা কিভাবে সম্ভব? আমি এই পোস্টে যে টিপসগুলো শেয়ার করতে চলেছি আশাকরি আপনি যদি এই টিপসগুলো অনুসরণ করেন তাহলে অবশ্যই অল্প পড়েপরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবেন ইনশাল্লাহ।

সঠিক পরিকল্পনা |অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো করার উপায়

আপনি যে কাজই করেন না কেন সঠিক পরিকল্পনা ছাড়া কখনই সফলতা অর্জন করতে পারবেন না। পৃথিবীতে যত মানুষ সফলতা অর্জন করেছেন তাদের মধ্যে বেশিরভাগ মানুষই সঠিক পরিকল্পনার জন্যই সফলতার চূড়ায় পৌঁছেছেন। তাই পরীক্ষার পূর্বে, পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার জন্য আপনার অবশ্যই সঠিক পরিকল্পনা করা প্রয়োজন। যেহেতু পরীক্ষার জন্য আপনার হাতে সময় খুবই অল্প তাই এই অল্প সময়ে পড়ার জন্য একটি সঠিক পরিকল্পনা তৈরি করুন।

পড়াশোনার রুটিন তৈরী করুন | পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জনের টেকনিক

অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার সবচাইতে কার্যকারী উপায় হল পড়াশোনার একটা রুটিন তৈরি করা।
যখন আপনি রুটিন করে পড়া-লেখা করবেন তখন আপনার পড়া-লেখার মধ্যে একটা শৃঙ্খলা তৈরি হবে এবং আপনি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে সকল বিষয় পড়ে শেষ করতে পারবেন। তাই অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার সবচাইতে কার্যকরী উপায় হলো পড়াশোনার রুটিন তৈরী করা।

মুখস্ত না করে বুঝে পড়ুন | অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করা যায়

বর্তমানে সৃজনশীল শিক্ষা পদ্ধতিতে এই যুগে মুখস্ত করে পড়ার দিন শেষ। আপনি যতই মুখস্ত করে পড়েন না কেন সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর লেখার সময় আপনার এই মুহূর্ত পড়া কোন কাজেই আসবে না। এছাড়া আপনার হাতে নিহত সময় খুবই অল্প তাই মুখস্থ করে মূল্যবান সময় অপচয় না করে বুঝে পড়া আপনার জন্য উচিত হবে। আর আপনি যদি বুঝে বুঝে পড়েন তাহলে সেটা মনে রাখবে আপনার জন্য অনেক সহজ হবে এবং সৃজনশীল প্রশ্নের উত্তর লেখার সময় আপনি খুব সুন্দর ভাবে লিখতে পারবেন। এছাড়া আপনি যদি কোন বিষয়ে বুঝে বুঝে পড়েন তাহলে সেটা অনেকদিন পর্যন্ত মনে থাকে এবং অল্প সময়ে অনেক বেশি শেখা যায়। তাই পরীক্ষার পূর্বে কোন বিষয় মুখস্থ না করে বুঝে বুঝে করা উচিত। তাহলে আপনি অল্প সময়ে অনেক কিছু শিখতে পারবেন এবং অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবেন।

পড়ার সময় খাতায় লেখা | পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জনের টেকনিক

আমরা যদি কোন বিষয় পড়ি বা শুনি এবং সেটা যদি সাথে সাথে খাতায় বা কোন নোটবুকে লিখি তাহলে সেটা খুব সহজে আমাদের মনে গেঁথে যায়। কোন বিষয় বারবার করলে আমরা সেটা যতটা মনে রাখতে পারি, যদি সেই বিষয়টি আমরা কোন খাতায় লিখে রাখি তাহলে সেটা সবচাইতে বেশি মনে রাখতে পারে। এছাড়া কোন বিষয়ে বেশি বেশি লিখলে যেমন আপনার হাতের লেখাও সুন্দর হবে তেমনি পরীক্ষার পূর্বে আপনার লেখার চর্চা টাও হয়ে যাবে যার ফলে আপনি পরীক্ষার খাতায় সকল প্রশ্নের উত্তর নির্ধারিত সময়ের মধ্যে সুন্দরভাবে লিখতে পারবেন।

প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিন এই শেষ করা | পড়াশোনার রুটিন

আমি প্রথমেই বলেছি, পরীক্ষার পূর্বে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার জন্য আপনার একটা সঠিক পরিকল্পনা প্রয়োজন অর্থাৎ আপনার হাতে যে কদিন সময় থাকবে সেই সময় অনুযায়ী একটা পড়ার রুটিন তৈরি করুন। রুটিন অনুযায়ী প্রতিদিনের পড়ার প্রতি দিনই শেষ করুন।

আজকের পড়া কালকের জন্য ফেলে রাখবেন না কারণ আপনি আজকের যে পড়া কালকের জন্য ফেলে রাখবেন সেটি আর কখনোই করা হবে না । কালকের জন্য আপনার একটা নতুন বিষয় রয়েছে। আর আজকের পরাজিত আপনি শেষ না করে কালকের জন্য রেখে দিচ্ছেন তা হলে কালকের পর আর পরিমাণটাও বেড়ে যাবে। এখন একবার ভাবুন যে যেখানে আজকের পর্বে আপনি শেষ করতে পারছেন না তাহলে কালকে এই বেশি পড়াটা টি কিভাবে শেষ করবেন। তাই প্রতিদিনের পড়া প্রতিদিন এই শেষ করার চেষ্টা করুন।

প্রতিযোগিতা করুন | পরীক্ষায় ভালো ফলাফল অর্জনের টেকনিক

ক্লাসে আপনার থেকে ভালো এমন একজন ছাত্রের সাথে প্রতিযোগিতা করুন। যখন আপনি কারো সাথে প্রতিযোগিতা করে পড়বেন তখন আপনার ভিতরে পড়াশোনার প্রতি একটা আলাদা আগ্রহ তৈরি হবে। তখন আপনি পড়াশোনা করে যেমন মজা পাবেন তেমনি অনেক কিছু শিখতে পারবেন।

আড্ডা দেওয়ার সময় অপচয় করা কমিয়ে দিন

বর্তমানে প্রায়ই আমরা সবাই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম গুলো ব্যবহার করে থাকি। এবং পড়াশোনার কথা ভুলে গিয়ে আমরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা বন্ধুদের সাথে আড্ডা দিয়ে মূল্যবান সময় গুলো নষ্ট করে ফেলি। পরীক্ষার কাছাকাছি সময়ে এসে আমরা চিন্তা করতে থাকি এই অল্প সময়ে কিভাবে ভালো রেজাল্ট করব। পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করার জন্য পূর্বে আড্ডা দেওয়া বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সময় অপচয় করা কমিয়ে দিন।

ভাল ছাত্রের সাথে মেশা | না পড়ে পরীক্ষায় পাশ করার উপায়

যারা পড়াশোনার প্রতি অনেক মনোযোগী এমন ভালো ছাত্রীর সাথে মিশলে আপনি পড়াশোনার ব্যাপারে তাদের কাছ থেকে অনেক ভালো ভালো টিপস পাবেন। পড়াশোনার সময় আপনি কোন বিষয় না বুঝলে তাদের কাছ থেকে হেল্পও নিতে পারবেন। আপনার পড়াশোনার ক্ষেত্রে বিভিন্ন বিষয় বুঝতে অনেক কার্যকরী হবে। পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে চাইলে ভালো ছাত্র দের সাথে মেলামেশা করুন।

নির্দিষ্ট সময় পড়ার অভ্যাস করুন |পড়াশোনার রুটিন

পড়াশোনার জন্য একটা নির্দিষ্ট সময় ফিক্স করে নিন এবং সেই অনুযায়ী রুটিন তৈরি করে নির্দিষ্ট সময়ে পড়াশোনার অভ্যাস তৈরি করুন। কখনো কোনো কারনে যেন এই সবাই টা মিসটেক না হয়। সারাদিন যাই করুন না কেন, পড়াশোনার জন্য যে নির্দিষ্ট সময় ফিক্স করবেন, প্রতিদিন সেই সময় হলেই পড়তে বসবেন।

পরিশেষে,

আশা করি অল্প সময়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করা উপায়গুলো আপনি বুঝতে পেরেছেন। এবং আমি উপরে যে টিপস গুলো শেয়ার করেছি, আশা করি সেগুলো যদি আপনি সঠিকভাবে অনুসরণ করতে পারেন তাহলে অল্প পড়ে পরীক্ষায় ভালো রেজাল্ট করতে পারবেন ইনশাল্লাহ। টিপস গুলো ভাল লাগলে বন্ধুদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না, এবং এই পোষ্ট সম্পর্কে যদি আপনার কোন মন্তব্য থাকে তাহলে নিচের কমেন্ট অপশনে গিয়ে অবশ্যই কমেন্ট করে জানিয়ে দিন। ধন্যবাদ!

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top