বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম (পার্সোনাল এ্যাকাউন্ট) | ২০২২

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২২। বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম বা ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায় জানতে চান?  তাহলে আজকে পোষ্ট টি আপনার জন্য।  আজকের পোস্ট এর মাধ্যমে আপনি জানতে পারবেন,  বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম,  ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায়,  এবং আরো জানতে পারবেন বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি কি লাগে এবং জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম।  সুতরাং বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম কানুন সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পুরো পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুনঃ
বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, বাটন মোবাইলে বিকাশ খোলার নিয়ম বাটন ফোনে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, বিকাশ অ্যাপ খোলার নিয়ম, বিকাশ পার্সোনাল একাউন্ট খোলার নিয়ম, আইডি কার্ড ছাড়া বিকাশ খোলার নিয়ম, জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, নতুন পদ্ধতিতে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায়, বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন

আরও পড়ুনঃ

বিকাশ অ্যাকাউন্ট খোলার নিয়ম  ২০২২

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম,  বিকাশ পার্সোনাল একাউন্ট খোলার নিয়ম। একটা সময় ছিল যখন মানুষ টাকা পাঠানোর জন্য ব্যাংকিং বা কুরিয়ারের মাধ্যমে টাকা পাঠাতো যাতে অনেক সময় লাগতো। কখনো কখনো এক সপ্তাহের বেশি সময় লেগে যেত। লেখাপড়া বা অন্যান্য কারণে যারা বাড়ির বাইরে অবস্থান করত, বাড়ি থেকে টাকা আসার অপেক্ষায় তাদের দিন গুনতে হতো। কিন্তু বর্তমানে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে আমাদের এই সমস্যাগুলোর সমাধান হয়েছে। আমরা এখন মুহূর্তের মধ্যেই বিশ্বের যে কোন জায়গায় টাকা পাঠাতে পারি। বাংলাদেশের মোবাইল ব্যাংকিং গুলোর মধ্যে সবচেয়ে জনপ্রিয় মোবাইল ব্যাংকিং হলো “বিকাশ”। আগে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য বিকাশ এজেন্টের নিকট শরণাপন্ন হতে হতো।  তবে বর্তমানে,  আমরা ঘরে বসে নিজেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারি।  কিভাবে নিজেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলবেন ঘরে বসে এবং বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে নীচে পড়ুনঃ

বিকাশ পার্সোনাল একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, পার্সোনাল বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, আপনি পার্সোনাল বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন দুইভাবে ।
১. বিকাশ এজেন্টের মাধ্যমে
২.  ঘরে বসে মোবাইলের মাধ্যমে

এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

বিকাশ এজেন্টের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে সবার প্রথমে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ আপনার নিকটবর্তী কোন  বিকাশ এজেন্টের কাছে যেতে হবে। বিকাশ এজেন্ট আপনার সকল তথ্যাবলী দিয়ে একটি ফরম পূরণ করবেন। এরপর আপনার মোবাইলে একটি নিশ্চিতকরণ এসএমএস আসবে। পরবর্তীতে আপনার বিকাশ একাউন্টের পিন কোড সেট করতে হবে। ব্যাস হয়ে গেল বিকাশ একাউন্ট খোলা।

বিকাশ একাউন্ট খুলতে যে সকল কাগজপত্র লাগে

১. এনআইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র
২.  সদ্য তোলা দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি
৩. একটি সক্রিয় সিম যুক্ত মোবাইল ফোন

বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায় হলো বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলা।  আপনার যদি কোন স্মার্টফোন থাকে তাহলে আপনি ঘরে বসে বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে নিজেই নিজের বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন।  ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম,  বিকাশ অ্যাপের মাধ্যমে অ্যাকাউন্ট খুলতে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুনঃ
  • প্রথমে গুগল প্লে স্টোর বা এখানে ক্লিক করে বিকাশ অ্যাপ ডাউনলোড করে ইনস্টল করে নিন।
  • এরপর নিশ্চিত করুন যে আপনি যে নম্বরে বিকাশ একাউন্ট খুলতে চান সেটি আপনার মোবাইলে চালু আছে।
  • এখন বিকাশ অ্যাপ টি ওপেন করুন এবং রেজিস্টার অপশনে চাপ দিন।
  • এরপর আপনার মোবাইল নাম্বার বসিয়ে নিয়মাবলী ও শর্তাবলী মেনে পরবর্তীতে চাপ দিন।
  • জাতীয় পরিচয় পত্রের দু’পাশের ছবি তুলে আপলোড করে দিন।
  • এখন আপনার সম্পর্কে সব তথ্য পূরণ করতে হবে।
  • পরবর্তী ধাপে আপনার একটি ছবি তুলতে হবে। ( ছবি তোলার সময় পর্যাপ্ত আলো আছে এমন স্থানে গিয়ে ছবি তুলুন)
  • আপনার ছবি তুলে আপলোড দেওয়া হয়ে গেলে আপনি একটি কনফারমেশন এসএমএস পাবেন।
  • কনফার্মেশন এসএমএস পাওয়ার পর একটি ৫  ডিজিটের পিন কোড টা সেট করে নিন।
  • ব্যাস হয়ে গেল বিকাশ একাউন্ট খোলা।

জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

অনেকে প্রশ্ন করে থাকেন জন্ম নিবন্ধন কার্ড দিয়ে কি বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়?  বা জন্ম নিবন্ধন দিয়ে কিভাবে বিকাশ একাউন্ট  খোলা যায়?  অনেকে জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম জানতে চান।  আসলে কি জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়?  কোন বিশেষ জরুরী প্রয়োজনে আপনার যদি এনআইডি কার্ড না থেকে থাকে তাহলে আপনি জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন।  তবে এক্ষেত্রে আপনি ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন না। কেননা ঘরে বসে অ্যাপসের মাধ্যমে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে এনআইডি কার্ডের তথ্য প্রদান করতে হয়। জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে অবশ্যই ঘরের বাইরে যেতে হবে । অর্থাৎ,  কোন নিকটবর্তী বিকাশ এজেন্টের নিকট বা কাস্টমার সেন্টারে গিয়ে আপনাকে  জনগণের দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলতে হবে।
জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে প্রয়োজনীয় কাগজপত্রসহ নিকটবর্তী কোন বিকাশ এজেন্টের নিকট যেতে হবে বা আপনার নিকটবর্তী যদি কোন বিকাশ কাস্টমার সেন্টার থেকে থাকে তাহলে সেখানে  গেলেও তারা আপনাকে জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খুলতে সাহায্য করবে।

জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য কি কি কাগজপত্র প্রয়োজন

জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য আপনাকে যে সকল  কাগজপত্রের প্রয়োজন হবে তা হলঃ
১. জন্ম নিবন্ধন এর অরজিনাল কপি এবং ফটোকপি।
২. সদ্য তোলা পাসপোর্ট সাইজের 2 কপি ছবি।
৩. একটি সক্রিয় সিম যুক্ত মোবাইল ফোন।
স্কুলের উপবৃত্তির টাকা বা বিভিন্ন প্রয়োজনে অনেকেরই বিকাশ একাউন্ট খোলার প্রয়োজন হয় কিন্তু এনআইডি কার্ড না থাকার কারণে অনেকে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারেন না। যদি আপনার এনআইডি কার্ড না থেকে থাকে এবং বিকাশ একাউন্ট খোলা টা জরুরী হয়ে থাকে তাহলে আপনি নিকটবর্তী কোন বিকাশ এজেন্টের বা কাস্টমার সেন্টারে যোগাযোগ করতে পারেন। আশা করি তারা যদি আপনার সমস্যাটি উপলব্ধি করতে পারেন তাহলে আপনাকে জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য সাহায্য করবেন। সুতরাং,  যাদের বিকাশ একাউন্ট নেই এবং এখন খোলা টা জরুরী হয়ে দাঁড়িয়েছে কিন্তু এনআইডি কার্ড না থাকার কারণে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারছেন না। জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য নিকটবর্তী কোন বিকাশ এজেন্ট কাস্টমার সেন্টারে যোগাযোগ করুন।

একটি এনআইডি কার্ড দিয়ে কতগুলো বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়?

এনআইডি কার্ড দিয়ে একটা মাত্র বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়। কেননা একটিমাত্র বিকাশ একাউন্ট দিয়ে সকল ধরনের লেনদেন করা যায়। এছাড়া বিকাশের বিভিন্ন ধরনের প্রতারণা ঠেকানোর জন্য মূলত বিকাশ একাউন্ট খোলার জন্য এনআইডি কার্ডের প্রয়োজন হয়ে থাকে। যাতে সহজেই প্রতারক বিকাশে প্রতারণাকারীকে শনাক্ত করা যায়। এছাড়া আমার ব্যক্তিগত ভাবে মনে হয় একজন ব্যক্তির অনেকগুলো বিকাশ একাউন্টের প্রয়োজন হয়না একটিমাত্র বিকাশ একাউন্ট এর সকল কাজ করা যায়। যারা বিকাশের মাধ্যমে বিভিন্ন ধরনের প্রতারণামূলক কাজ করে থাকেন, তাদেরই অনেকগুলো বিকাশ একাউন্ট এর প্রয়োজন হয়। যারা এক এক সময় এক একটি অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে বিভিন্ন মানুষের সাথে প্রতারণা করে থাকেন।

বিকাশ কোড

বিকাশ ব্যালেন্স চেক করার কোড, বিকাশে সেন্ড মানি কোড, বিকাশ ক্যাশ আউট কোড বা বিকাশ থেকে মোবাইল রিচার্জ করার কোড ইত্যাদি বলে কোন কোড নেই। এগুলো বিকাশের বিভিন্ন মেনু বা অপশন। বিকাশের কোড হচ্ছে *247# । বিকাশের কোড *247# ডায়েল করার পর আপনি বিভিন্ন মেনু দেখতে পাবেন,  যেমন সেন্ড মানি, ব্যালেন্স চেক, ক্যাশ আউট ইত্যাদি। এবং এগুলোর পাশে সিরিয়াল নাম্বার দেখতে পাবেন, এবং আপনি যে সার্ভিসটি নিতে চাচ্ছেন সেই নাম্বারটি লিখে সেন্ড করতে হবে।

বিকাশ অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের কিছু সতর্কতাঃ

  • বিকাশের গোপন পিন নাম্বারটি কখনো কারো সাথে শেয়ার করবেন না। এমনকি বিকাশ এজেন্ট বা বিকাশের কোনো কর্মকর্তার সাথে ও না । কেননা বিকাশ কখনো আপনার পিন নাম্বার টি জানতে চাইবে না।
  • বিকাশে বিভিন্ন ধরনের পুরস্কার লটারি জেতা ইত্যাদি সম্পর্কিত কোন মেসেজে সাড়া দিবেন না। প্রয়োজন হলে অফারটির সত্যতা যাচাই করার জন্য বিকাশের হেল্পলাইন নাম্বার  ১৬২৪৭ এ যোগাযোগ করুন।
  • অসময়ে লেনদেনের পূর্বে এবং পরে আপনার বিকাশ একাউন্টের ব্যালেন্স চেক করবেন।
  • কখনো কোনো এজেন্ট এর ব্যক্তিগত নাম্বারে ক্যাশ আউট করবেন না।
  • লেনদেনের জন্য অন্য কারো মোবাইল ফোন ব্যবহার করবেন না।
  • কখনো কোন মেসেজ বা ফোন কলে আপনার বিকাশের পিন নম্বর জানতে চাইলে বা কোন লিংক প্রদান করলে তাতে ক্লিক করবেন না।

পরিশেষে,

এই পোষ্টের মাধ্যমে আপনি বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম,  বিকাশে ব্যক্তিগত একাউন্ট খোলার নিয়ম,  ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায় সম্পর্কে ভালোভাবে জানতে পেরেছেন। যদি পোস্টটি সম্পর্কে আপনার কোন মন্তব্য থাকে তাহলে অবশ্যই  নিচের কমেন্ট অপশন এ গিয়ে কমেন্ট করে জানিয়ে দিন।  এবং ভালো লাগলে শেয়ার করতে ভুলবেন না।
Tags: বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, বাটন মোবাইলে বিকাশ খোলার নিয়ম, বাটন ফোনে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, বিকাশ অ্যাপ খোলার নিয়ম, বিকাশ পার্সোনাল একাউন্ট খোলার নিয়ম, আইডি কার্ড ছাড়া বিকাশ খোলার নিয়ম, জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, নতুন পদ্ধতিতে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম, ঘরে বসে বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায়, বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি কি প্রয়োজন

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top