মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায়

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম শুধু সৌন্দর্য নষ্ট করে না, এই অবাঞ্ছিত লোমের কারনে ভালভাবে মেকআপ করারও উপায় নাই। আজকের এই পোস্টে মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় নিয়ে আলোচনা করব।

মূলত হরমোনজনিত কারনে কিছু কিছু মেয়েদের মূখে বিশেষ করে উপরের ঠোঁটের উপরে পশম দেখা যায়। বিশ্বের প্রায় প্রায় প্রতি ১০ জনে ১ জন মেয়ে মুখে অবাঞ্ছিত লোম সম্পর্কিত সমস্যায় ভুগেন। আপনি যদি তাদের মধ্যে একজন হয়ে থাকেন এবং আপনার মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় জানতে চান, তাহলে আজকের পোস্টটি আপনার জন্যই।

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায়
মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায়

আরও পড়ুনঃ

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায়

অনেকেই মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার জন্য বিভিন্ন ধরনের হেয়ার রিমুভ ক্রিম ব্যবহার করেন। কিন্তু মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার ক্রিম ব্যবহার করা উচিত নয়। কেননা, এসকল ক্রিমে বিভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয় যা আপনার ত্বকের উপকারের চেয়ে ক্ষতিই বেমি করবে। এতে আপনার মুখের সৌন্দর্য চিরতরে নষ্ট হয়ে যেতে পারে। তাই ঘরোয়া উপায়েই মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করা উচিত। তাই আজকের এই পোস্টে আমি আপনাকে ৫টি ঘরোয়া উপায় বলব যার মাধ্যমে আপনি আপনার মুখের অবঞ্ছিত লোম দূর করতে পারবেন। তবে, তার আগে এটা জেনে নিন মেয়েদের মুখে এই অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার কার কি?

মেয়েদের মুকে অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার কারন কি

মেয়েদের মুখে অবাঞ্ছিত লোম সমস্যাকে চিকিৎসার ভাষায় হারসিউটিজম বলা হয়ে থাকে। পৃথিবীর প্রায় ১৫ শতাংশ নারী এই সমস্যায় ভুগেন। মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম শুধুমাত্র অবাঞ্ছিত লোম জনিত সমস্যা মনে হলেও, প্রকৃতপক্ষে এটি মেয়েদের শরীরের বিভিন্ন সমস্যার সমষ্টিগত অংশ।

মেয়েদের মুখে অবাঞ্ছিত লোম হওয়ার মূল কারন অ্যাক্রোজেন নামক হরমোনের আধিক্যতা। অ্যাক্রোজেন (টেষ্টোস্টেরন) হরমোন পুরুষের শরীরে বেশি থাকে। যার মূল কাজ হল পুরুষের শারীরিক বৈশিষ্ঠ্য বিকশিত করা। মেয়েদের শরীরে এই ধরনের হরমোন সামান্য পরিমানে থাকে। যে সকল মেয়েদের শরীরে এই হরমোন এর মাত্রা বেশি হয়, তারাই মূলত শরীরে অবাঞ্ছিত লোম জনিত সমস্যায় ভুগেন।

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত হেয়ার রিমুভ করার ঘরোয়া উপায়

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম মেকআপ করার পরও সৌন্দর্য নষ্ট করে। পার্লার থেকে মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম রিমুভ করে আসার কয়েক সপ্তাহের মধ্যে আবারও এই অবাঞ্ছিত লোম ওঠা শুরু হয়। মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার জন্য অনেকেই আবার হেয়ার রিমুভ করার ক্রিম ব্যবহার করেন। কিন্তু এই সকল ক্রিম গুলোর বিভিন্ন পার্শপ্রতিক্রিয়া রয়েছে। এতে আপনার ত্বকের বিভিন্ন ক্ষতি হবে পারে। তাহলে পার্শপ্রতিক্রিয়া ছাড়া মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় কি?  উপায় হল ঘরোয়া উপায়ে মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করা। আজকে আমি আপনার সাথে যে টিপস শেয়ার করব তার মাধ্যমে আপনি আপনার মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে পারবেন। এবং এই পদ্ধতিতে কোন পার্শপ্রতিক্রিয়া নেই। যাইহোক,  চলুন দেখে নিই মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় গুলো কি কি?

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায়

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার অনেক উপায় বা টোটকা রয়েছে। ঘরোয়া উপায়ে মেয়েদের মুখেুর অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় গুলো হলঃ

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় | হলুদের ব্যবহার

কাল থেকেই রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয়ে আসছে কাঁচা হলুদ। মেয়েদের মুখের লোম দূর করতেও কাঁচা হলুদ ব্যবহার করা হয়। প্রয়োজনমতো কাঁচা হলুদ পাটায় পিষে এর সাথে সামান্য পানি মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন মুখের যেসব অংশে লোম রয়েছে সেখানে হলুদের পেস্ট লাগিয়ে নিন। এবং শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। এরপর গরম পানিতে মুখ ধুয়ে ফেলুন ।এভাবে কয়েক দিন ব্যবহার করার পর আপনি নিজেই দেখতে পারবেন যে আপনার মুখের অবাঞ্ছিত লোম কমতে শুরু করেছে।

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় | বেসনের ব্যবহার

আদিকাল থেকেই হলুদের মতোই রূপচর্চায় ব্যবহৃত হয় আসছে বেসন। বাজারে যে সব ধরনের ফেসপ্যাক পাওয়া যায়, তার বেশিরভাগ ফেসপ্যাকে এই বেসন মেশানো থাকে। বেসনে থাকা উপাদানগুলি ত্বককে গভীর থেকে পরিষ্কার করতে সাহায্য করে। ঘরোয়া উপায়ে মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন বেসন। এছাড়া নিয়মিত মুখে বেসন ব্যবহারের ফলে ত্বক অনেক কোমল ও মসৃণ থাকে।

মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার জন্য বেসন ও হলুদের গুঁড়া এবং পরিমাণমতো পানি দিয়ে একসঙ্গে মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিন। এরপর মুখের যে অংশের লোম রয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন অথবা আপনি চাইলে পুরো মুখেই এই পেস্টটি লাগাতে পারেন। এরপর শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। শুকিয়ে যাওয়ার পর তোয়ালে দিয়ে চেপে চেপে ফেসপ্যাকটি উঠিয়ে ফেলুন। আপনি লক্ষ্য করলে দেখতে পারবেন যে ফেসপ্যাক এর সাথে আপনার মুখের অবাঞ্ছিত লোমও দূর হয়ে যাচ্ছে।

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে ডিমের ব্যবহার

আমরা কমবেশি চুলের যত্নে ডিমের ব্যবহার করি। অনেক মেয়েরা ত্বকের যত্নেও ডিমের ব্যবহার করে থাকে। ডিমে যে প্রোটিন থাকে তার চুলের ও ত্বকের পুষ্টি জোগাতে সাহায্য করে। মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে ব্যবহার করতে পারেন এই ডিম।

এক টেবিল চামচ চিনি, আধা টেবিল চামচ কর্নফ্লাওয়ার-এর সঙ্গে ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে ভালো করে ফেটিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এবার মুখের যে অংশের লোম রয়েছে সেখানে লাগিয়ে নিন এবং কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে তা শুকিয়ে যেতে দিন এবার ত্বকের ওপরে শুকিয়ে যাওয়া স্তরটি টেনে টেনে তুলে ফেলুন দেখবেন এর সাথে আপনার মুখের অবাঞ্ছিত লোম উঠে এসেছে।

মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করতে চিনি ও লেবুর রসের ব্যবহার

মেয়েদের মুখের লোম দূর করতে ব্যবহার করতে পারবেন লেবুর রস। এটি প্রাকৃতিক ব্লিচ হিসেবে কাজ করে। যা আপনার মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করবে এবং আপনার ত্বককে করবে উজ্জ্বল। ২টেবিল চামচ চিনির সাথে লেবুর রস ও সামান্য পানি মিশিয়ে একটি মিশ্রন তৈরী করুন এবং এটা গরম করে নিনি (ফুটিয়ে ঘন করে নিন)। এরপর মিশ্রনটি ঠান্ডা করে নিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে মুখের অবাঞ্ছিত লোমের উপার লাগান। ৩০ মিনিট পর ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

পরিশেষে,

আশাকরি মেয়েদের মুখের অবাঞ্ছিত লোম দূর করার উপায় টিপস গুলো আপনার ভাল লেগেছে এবং উপকারে আসবে। পোস্টটি সম্পর্কে আপনার কোন মন্তব্য থাকলে কমেন্ট করে জানাতে ভুলবেন না। এবং আপনার কোন ফ্রেন্ডের মুখের অবাঞ্ছিত লোম সমস্যা থাকলে পোস্টটি শেয়ার করতে ভুলবেন না।

 

 

Scroll to Top