মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে | বেস্ট কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ ২০২২

মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রইড ফোন দিয়ে,  কি একটু অবাক লাগছে তাইনা? আসলে ব্যাপারটি কিন্তু অবাক করার মতো। আমার মনে আছে আমি যখন ছোট ছিলাম, তখন আমার মনে হতো ” ইশ! যদি কোন ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ থাকতো ,তাহলে আমি ভয়েজ চেঞ্জ করে সবার সাথে কথা বলে তাদের সাথে মজা করতে পারতাম। ” তবে সে সময় কিন্তু ভয়েস চেঞ্জ করার নিয়ম সম্পর্কে জানতাম না। এ কারণে তখন সবার সাথে মজাও করতে পারতাম না। আমি জানি আমি একা নই। বরং অনেকেই চান মোবইলে ভয়েস চেঞ্জ করে কথা বলে বন্ধুদের সাথে মজা করতে।

যাইহোক, আজকের লেখায় আমি মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ করার নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করবো এবং একইসাথে আপনাদেরকে কিছু দারুণ কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপস সম্পর্কে জানব। এই অ্যাপস গুলোর মধ্যে থাকবে মেয়ে কন্ঠে কথা বলার apps.  তাই আশা করি আজকের এই আলোচনা আপনাদের সবার জন্য উপকারী হবে। তাই লেখাটি মন দিয়ে পড়ুন এবং  ভয়েস পরিবর্তন করে কথা বলা শিখে মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রইড ফোন দিয়ে।

মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রইড ফোন দিয়ে | বেস্ট কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ ২০২২

 

মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রয়েড ফোন দিয়ে

আপনারা অনেকেই  মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ করতে চান এবং মেয়েদের ভয়েস দিয়ে অনেকের সাথে কথা বলে মজা করতে চান ৷ একই সাথে মেয়ে কন্ঠে কথা বলার সফটওয়্যার ও ফ্রি ফায়ার ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ নিয়েও কিন্তু সবার আগ্রহের শেষ নেই।

বর্তমানে এন্ড্রইড ফোন সবার হাতে হাতে থাকার কারণে এই বিষয়টি অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে। কারণ এন্ড্রইড ফোনে প্লে স্টোর নামের একটি অ্যাপ থাকে। এই অ্যাপের মাধ্যমে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন সম্পূর্ণ বিনামূল্যেই নিজের ফোনে ইনস্টল করে নিতে পারবেন৷  এই অ্যাপ গুলোর মধ্যে কিন্তু বিভিন্ন ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপও বিদ্যমান রয়েছে। এগুলোর মাধ্যমে বর্তমানে নিজের ভয়েস চেঞ্জ করে অন্যদের সাথে কথা বলা অনেক সহজ হয়ে গিয়েছে৷

ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার বলতে কী বোঝায়?

চলুন লেখার শুরুতেই একটু বেসিক আলোচনা করে নেই। ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার হচ্ছে এমন একটি সফটওয়্যার বা অ্যাপ্লিকেশন যেটির সাহায্যে আপনি নিজের ভয়েস চেঞ্জ করে অন্য মানুষজনকে কল করতে পারবেন। এখন প্রশ্ন হল এই ভয়েস চেঞ্জ কিভাবে হয় বা ভয়েস চেঞ্জ করার নিয়ম কী।

মোবাইল দিয়ে ভয়েস চেঞ্জ করে বা মেয়ে কন্ঠে কথা বলে কিভাবে?

ধরুন আপনি একজন ছেলে৷  এখন স্বাভাবিক ভাবেই আপনার ভয়েস ছেলেদের মতোই হবে তাই না? এখন ধরুণ হঠাৎ করে আপনার ইচ্ছা হলো নিজের ভয়েস চেঞ্জ করে মেয়ে কন্ঠে কথা বলে কারো সাথে মজা করবেন৷ যেহেতু আপনি নিজের ন্যাচারাল ভয়েস কখনোই চেঞ্জ করতে পারবেন না, তাই যদি ভয়েস চেঞ্জ সফটওয়্যার ব্যবহার করেন তাহলে স্মার্টফোনে  বিভিন্ন এপ্লিকেশন ইন্সটল করার মাধ্যমে সেই এপ্লিকেশনগুলোর সাহায্যে নিজের ভয়েস মেয়েদের মত করে নিতে পারবেন এবং সেই মেয়েদের মত বানানো ভয়েস দিয়েই আপনি কাউকে কল করে তার সাথে মজা করতে পারবেন৷ গুগল প্লে-স্টোরে অনেক ভয়েস চেঞ্জ করার অ্যাপ রয়েছে যেমনঃ ভয়েস চেঞ্জার, ভয়েস চেঞ্জার ইন কল ফ্রি ইত্যাদি। এগুলো একটি ব্যবহার করে আপনি খুব সহজে কল ভয়েস চেঞ্জ করে কথা বলতে পারবেন

শুধু তাই নয়, অনেক সময় কিন্তু বিভিন্ন প্রয়োজনে আমাদের ভয়েস চেঞ্জ করা দরকার হয়। তাই এই ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার গুলো সম্পর্কে জেনে  নিজের ভয়েসকে মেয়েদের ভয়েস অথবা ছেলেদের ভয়েসে কনভার্ট করে কারো সাথে কথা বলতে পারবেন। ভয়েস চেঞ্জ মোবাইল দিয়ে করা যায় বলে  এখন এই ভয়েস চেঞ্জ করার উপায় খুব সহজ হয়ে গিয়েছে।

বেস্ট কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ ২০২২

সত্যি বলতে ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ কিন্তু অনেকগুলো রয়েছে। কিন্তু সবগুলো অ্যাপ দিয়ে সবচেয়ে ইফেক্টিভ ভাবে কাজ করা সম্ভব হয় না৷ দেখা যায় কিছু ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ এর মধ্যে ভয়েস কেমন যেন রোবটিক মনে হয়। কখনো কখনো দেখতে পাবেন কিছু অ্যাপ কল দেওয়ার সময় কণ্ঠ পরিবর্তন করা apps বলে মনে হলেও এগুলো ব্যবহার করার সময় দেখা যায়, কল দেওয়ার সময় ভয়েস চেঞ্জ হচ্ছেনা। আবার কিছু ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ নিজেদেরকে মেয়ে কন্ঠে কথা বলার সফটওয়্যার হিসেবে দাবী করলেও এগুলো কিন্তু বাস্তবিক পক্ষে সেভাবে কাজের হয় না।

এ কারণে ভয়েস পরিবর্তন অ্যাপ কোন গুলো ভালো সেটি জেনে রাখা কিন্তু অত্যন্ত জরুরী। এই কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপস গুলো কয়েকটি সম্পূর্ণ ফ্রিতে ব্যবহার করা যায় আবার কয়েকটি সব সময় ব্যবহারের জন্য ক্রেডিট পারচেজ করার প্রয়োজন হয়।  আমি আমার নলেজ অনুযায়ী বিস্তারিতভাবে সবকিছু সম্পর্কে আপনাদেরকে জানানোর চেষ্টা করবো।

ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার

এবার আমরা চলে এসেছি আজকের আর্টিকেলের মূল অংশে। এখন আমি আপনাদের জানাবো কিছু ভয়েস চেঞ্জ করার অ্যাপ নিয়ে যেগুলো দিয়ে মোবাইলে কথা বলার সময় ভয়েস চেঞ্জ করতে পারবেন এবং নিজের ভয়েসকে মেয়েদের ভয়েস বানিয়ে কথা বলতে পারবেন।

১. ভয়েস চেঞ্জার ইন কল | কল ভয়েস চেঞ্জ করার অ্যাপ

মেয়ে কন্ঠে কথা বলার সফটওয়্যার অর্থাৎ ভয়েস চেঞ্জ সফটওয়্যার হিসেবে আমি প্রথম যে সফটওয়্যারটির কথা বলতে চাই  সেটির নাম হলো ভয়েস চেঞ্জার ইন কল। এই অ্যাপটি একটি অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ। যার কারণে যেকোনো স্মার্টফোন থেকে প্লেস্টোরে প্রবেশ করে খুব সহজে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।  পাশাপাশি এটি ডাউনলোড করার জন্য আপনাদেরকে কোন টাকা পে করতে হবে না। এটি এমন একটি কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ যেটির ইউজার ইন্টারফেস খুব সিম্পল ও সহজভাবে ডিজাইন করা হয়েছে। যে কারণে যে কেউই খুব সহজেই এই অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন।

ভয়েস চেঞ্জ করার নিয়ম | কল ভয়েস চেঞ্জার ইন কল

এই অ্যাপটি দিয়ে ভয়েস চেঞ্জ করার নিয়ম হলো  প্রথমে অ্যাপটি ইন্সটল করে নিন। তারপর যার নাম্বারে কল করতে চান তার নাম্বারটি  ইনসার্ট করে সেই নাম্বারে কল দেওয়ার সময় দেখতে পাবেন সেখানে ভয়েস চেঞ্জ করার অপশন রয়েছে। সেখান থেকে খুব সহজেই যে কন্ঠে কথা বলতে চান সেটি সিলেক্ট করে কল দিতে পারেন।  তাই এই অ্যাপটি প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করুন এবং মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রইড ফোন দিয়ে।

২. ম্যাজিক কল ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপ | কল ভয়েস চেঞ্জ করার অ্যাপ

প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করা যায় এমন আরেকটি ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার হলো ম্যাজিক কল ভয়েস চেঞ্জার অ্যাপ। এই অ্যাপটিকে আমি মেয়ে কন্ঠে কথা বলার সফটওয়্যার হিসেবে খুবই কার্যকরী বলবো। এ কল ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপস টি প্লে স্টোর থেকে ডাউনলোড করার পর শুরুতেই নিজের মোবাইল নাম্বার দিয়ে একাউন্ট ভেরিফাই করে নিতে হয়।

এই অ্যাপটিতে শুরুতে কল করার জন্য আপনি সম্পূর্ণ ফ্রিতে কল করতে পারলেও পরবর্তীকালে যদি ভয়েস চেঞ্জ করতে চান তাহলে আপনাকে নির্দিষ্ট পরিমাণ ফি দিয়ে ক্রেডিট পারচেজ করতে হবে। তাই এই ভয়েস পরিবর্তন অ্যাপ ডাউনলোড করে ভয়েস পরিবর্তন করে কথা বলা খুবই সহজ।

৩. AV Voice Changer | কল ভয়েস চেঞ্জ করার অ্যাপ

এবার আমি আপনাদেরকে এমন একটি ভয়েস পরিবর্তন করার সফটওয়্যার সম্পর্কে জানাবো যেটি প্লে স্টোরে পাওয়া না গেলেও গুগলে সার্চ করে খুব সহজেই ডাউনলোড করতে পারবেন। এই অ্যাপটির নাম হলো AV Voice Changer.  এ ভয়েস পরিবর্তন অ্যাপ এর  সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য ফিচার হচ্ছে এই অ্যাপ দিয়ে ভয়েস চেঞ্জ করলে দেখতে পাবেন ভয়েসের কোয়ালিটি অত্যন্ত ভালো এবং ভয়েস শুনতে আর্টিফিশিয়াল লাগেনা।  তাই আমি আপনাদের বলবো দেরি না করে তাড়াতাড়ি ডাউনলোড করে ফেলুন এই ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার।

পরিশেষে,

আমরা চলে এসেছি আজকের লেখার প্রায় শেষ অংশে। এটুকুই ছিল ভয়েস চেঞ্জ করার সফটওয়্যার নিয়ে আজকের আলোচনা। আমি আজকে যে কয়টি ভয়েস পরিবর্তন নিয়ে আলোচনা করেছি তার প্রতিটি  দিয়েই আপনারা কল করার সময় ভয়েস চেঞ্জ করে নিতে পারবেন।  তাই এই অ্যাপ গুলো থেকে নিজের পছন্দের অ্যাপটি ডাউনলোড করুন এবং মেয়ে কন্ঠে কথা বলুন এন্ড্রইড ফোন দিয়ে। এর পাশাপাশি আমি সাজেশন হিসেবে বলবো ফেক ভয়েস চেঞ্জ অ্যাপ থেকে দূরে থাকুন এবং নিজের স্মার্টফোনটিকে প্রোটেক্টেড রাখুন।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top