Best Blog 24 https://www.bestblog24.com/2021/05/earn-money-by-wordpress.html

ওয়ার্ডপ্রেস -এ অনলাইনে আয় | ২০২১

বর্তমান যুগ ইন্টারনেটের যুগ । ইন্টারনেট মানে সফটওয়্যার ও ওয়েবসাইটের দুনিয়া। । আপনি ফেসবুক ব্যবহার করছেন, ইউটিউব ব্যবহার করছেন, এছাড়াও বিভিন্ন ধরনের ওয়েবসাইট ব্যবহার করছেন, এন্টারটেইনমেন্ট নিচ্ছেন, বিভিন্ন কিছু শিখছেন, আপনার ফিলিংস শেয়ার করছেন, বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করছেন এছাড়াও বিভিন্ন খবর পড়ার মাধ্যমে নিজেকে আপডেট রাখছেন এই যে ওয়েবসাইট ইউটিউব ফেসবুক আপনি ভিজিট করছেন এই সবগুলোই কিন্তু এক একটি সফটওয়্যার। তাই বর্তমান সময়ে কোনো একটি সফটওয়্যার ব্যবহারে আপনি নিজেকে যদি পারদর্শী করে তুলতে পারেন তাহলে সেই দক্ষতা দ্বারা অনলাইনে আপনি একটি দারুণ ক্যারিয়ার তৈরি করতে পারবেন।  বিভিন্ন মানুষকে বা বিভিন্ন কোম্পানি কে সহযোগিতা করার মাধ্যমে আপনি একটি ফ্রীল্যান্স ক্যারিয়ার গড়তে করতে পারেন।
ওয়ার্ডপ্রেস -এ অনলাইনে আয় | ২০২১

আজকে আমরা ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার নিয়ে আলোচনা করব। ওয়ার্ডপ্রেস কি? কিভাবে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে অনলাইনে আয় করতে পারবেন।তাহলে আসুন শুরুতে জানা যাক ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার টি আসলে কি? 

ওয়ার্ডপ্রেস কি?

বাংলা পৃথিবীর সবচেয়ে জনপ্রিয় ওয়েবসাইট তৈরির সফটওয়্যার ওয়ার্ডপ্রেস। ওয়াডপ্রেস সফটওয়্যারটি ব্যবহার করে আমরা যেকোনো ধরনের ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারি খুব সহজেই এবং খুবই অল্প সময়ের মধ্যে। একটি ওয়েবসাইটের জন্য যে যে ফিচার এর প্রয়োজন হতে পারে সে সব ধরনের ফিচারস বা ফাংশনালিটি ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়ারের মাধ্যমে যুক্ত করা যায়। যার জন্য ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার এর চাহিদা পুরো পৃথিবী জুড়ে অন্যান্য সব সফটওয়্যার এর থেকে সবচেয়ে বেশি এবং ফ্রীল্যান্স এর যে মার্কেটপ্লেস গুলো আছে যেমন ফাইবার, আপওয়ার্ক,ফ্রিল্যান্সার এই মার্কেটগুলোতে এই ওয়ার্ডপ্রেস রিলেটেড কাজের পরিমাণ অনেক বেশি। আপনারা যদি ওয়েব ডেভেলপমেন্ট বা ওয়েব ডিজাইন ইন্ডাস্ট্রি তে একটি ক্যারিয়ার গড়তে চান তাহলে ওয়ার্ডপ্রেস প্রেস সম্পর্কে শিখে নেয়াটা আপনার জীবনের সবচেয়ে ভালো সিদ্ধান্ত হবে।

বাংলাদেশসহ পুরো বিশ্বে লক্ষ্য লক্ষ্য ওয়েব ডেভলপারা ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করে দেওয়ার মাধ্যমে অনলাইনে খুবই সুন্দর ক্যারিয়ার গড়েছেন এবং ওয়ার্ডপ্রেসের মাধ্যমে আয় করছেন লক্ষ লক্ষ টাকা।  তাহলে আসুন এখন জানা যাক ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যারটির মাধ্যমে কি কি উপায়ে অনলাইনে ইনকাম করতে পারবেন।

১. ডেভলপিং কাস্টম ওয়েবসাইট

বিভিন্ন ক্লায়েন্ট এবং কোম্পানির জন্য কাস্টম ডিজাইন ওয়েবসাইট তৈরি করে দেওয়ার মাধ্যমে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে দারুন একটি ক্যারিয়ার ডেভলপ করতে পারেন এবং তার জন্য আপনাকে যে বিষয় গুলো শিখতে হবে তা হল :

1. HTML

2. CSS

3. JAVASCRIPT

4. PHP

5. My SQL

6. WordPress ( functions-filters-hooks)

এই প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ গুলো শিখে নেওয়ার পর আপনি যেকোন ক্লায়েন্ট বা কোম্পানির জন্য কাস্টম ডিজাইন ওয়েব সাইট তৈরি করে ফেলতে পারবেন এবং এই কাস্টম ডিজাইন ওয়েবসাইট এর কাজ সার্ভিস হিসেবে বিভিন্ন মার্কেটপ্লেসে যেমন ফ্রিল্যান্সার বা আপওয়ার্ক এই ধরনের মার্কেটপ্লেসে আপনি সেল করতে পারবেন। বিভিন্ন ক্লায়েন্টের কাছে বা কোম্পানির কাছে যেটার মাধ্যমে আপনি অনেক ভাল মানের চার্জ করতে পারবেন ।

২. নিজস্ব ওয়ার্ডপ্রেস প্রোডাক্ট তৈরি

আপনার নিজের ওয়ার্ডপ্রেস প্রোডাক্ট তৈরি করে আপনি যদি এন্টার প্রিমিয়ার হতে চান এবং কোনো ক্লাস বা কোম্পানির জন্য কাজ করতে চান না বরঞ্চ আপনি নিজেই একটা বিজনেস করতে চান বা কোম্পানি শুরু করতে চান এবং আপনার নিজের প্রোডাক্ট আপনি নিজে ডেভলপ করতে চান তাহলে এই ওয়ার্ডপ্রেসকে ব্যবহার করে আপনি থিম বা প্লাগ-ইন ডেভলপ করতে পারবেন। অনলাইনে ওয়ার্ডপ্রেস প্রোডাক্টস এর অনেক চাহিদা যেমন থিম বা প্লাগ-ইন এগুলার সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি মার্কেটপ্লেস হচ্ছে থিমফরেস্ট। এই থিমফরেস্ট মার্কেটপ্লেসে আপনার তৈরি করা প্রোডাক্টগুলো আপনি শেয়ার করতে পারেন এবং যখনই আপনার কোন প্রোডাক্টে মার্কেটপ্লেস থেকে সেল হবে প্রত্যেকটা সেলের উপরে আপনি একটা কমিশন পাবেন। থিমফরেস্ট ছাড়াও আরো একটি জনপ্রিয় মার্কেটপ্লেস হচ্ছে ক্রিয়েটিভ মার্কেটপ্লেস। যেখানে আপনার তৈরি করা ওয়ার্ডপ্রেস প্রোডাক্টগুলো আপনি সেল করতে পারেন। প্রোডাক্ট তৈরি করার সুবিধা হচ্ছে আপনি কোনো ক্লাইন্ট বা কোম্পানির হয়ে কাজ করবেন না আপনার প্রোডাক্ট গুলো মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে সেল করবেন সাধারন কাস্টমারের কাছে। যেটা থেকে আপনি একটা রিয়েলিটি আর্নিং ডেভলপ করতে পারবেন আপনার ক্যারিয়ারের জন্য অর্থাৎ প্রোডাক্টটি একবারই আপনি তৈরি করবেন কিন্তু যতবারই প্রোডাক্ট সেল হতে থাকবে ততোবারই আপনি আর্নিং করতে থাকবেন। ওয়ার্ডপ্রেস প্রডাক্ট প্রিমিয়াম থিম বা প্রিমিয়াম ফ্রি প্লাগ-ইন তৈরি করার মাধ্যমে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে অনলাইনে দারুন একটি ক্যারিয়ার ডেভলপ করতে পারবেন এবং এর জন্য আপনাকে উপরে উল্লেখ করা কাজগুলো শিখতে হবে।

৩. ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার সার্ভিস

কোনো কারণে যদি আপনি কম্পিউটার প্রোগ্রামিং শিখতে না পারেন আপনার কাছে কঠিন মনে হয় তারপরও আপনি ওয়ার্ডপ্রেস কে ব্যবহার করে দারুণ ওয়েবসাইট তৈরি করে ফেলতে পারবেন। বিভিন্ন প্রিমিয়াম থিম এবং প্রিমিয়াম প্লাগ-ইন এর ব্যবহার শিখে নেওয়ার মাধ্যমে। ওয়ার্ডপ্রেসের সবচেয়ে মজার বিষয় হচ্ছে এটা নিয়ে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য আপনাকে প্রোগ্রামিং শিখতে হবে এমন কোনো কথা নেই। কম্পিউটার প্রোগ্রামিং ছাড়াও এই ওয়ার্ডপ্রেস সফটওয়্যার এর বিভিন্ন প্রিমিয়াম থিম এবং প্লাগ-ইন এর ব্যবহার শিখে নেওয়ার মাধ্যমে আপনি প্রফেশনাল মানের ওয়েব সাইট তৈরি করে ফেলতে পারবেন। বিভিন্ন ক্লায়েন্ট এবং কোম্পানির জন্য পুরো ওয়ার্ল্ড এ এমন লক্ষ কোটি মানুষ আছে যাদের ওয়েবসাইটের প্রয়োজন কিন্তু তাদের টেকনিক্যাল নলেজ নাই যেমন ধরুন একজন ডক্টর সে মেডিকেল সাইন্সে পারদর্শী সে জানে যে মানুষের কিভাবে ট্রিটমেন্ট করতে হবে কিন্তু সে সফটওয়্যার এর ব্যবহার জানে না। এখন আপনি একজন ডক্টর কে সাহায্য করতে পারেন। তার জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করে দিয়ে। ডক্টর আপনাকে হেল্প করছে হেলথ রিলেটেড সার্ভিস দেওয়ার মাধ্যমে ঠিক একইভাবে আপনিও তাকে তার জন্য ওয়েবসাইট তৈরি করে দেওয়ার মাধ্যমে তার কাছ থেকে আর্নিং করে নিতে পারবেন। এখানে আপনার একটি প্রশ্ন আসতে পারে যদি কোডিং না শিখেই ওয়ার্ডপ্রেস ব্যবহার করে ওয়েব সাইট তৈরি করে ফেলা যায় তাহলে কোডিং শেখার প্রয়োজন কি ? এর উত্তর হলো প্রোগ্রামিং শিখলে আপনি নিজে ওয়ার্ডপ্রেস প্রোডাক্ট তৈরি করতে পারবেন। যেটা দ্বারা আপনি রিয়েলিটি আর্নিং করতে পারবেন অর্থাৎ আপনি প্রোডাক্ট তৈরি করবেন সেটা থেকে বারবার আপনার আর্নিং হতে থাকবে যতবার প্রোডাক্ট সেল হবে কিন্তু কোম্পানি থেকে যারা রেডিমেট প্রিমিয়াম থিম গুলো ব্যাবহার করে না তারা কাস্টম ডিজাইনারকে দিয়ে সফটওয়্যার ডিজাইন করিয়ে নেয় এবং কম্পিউটার প্রোগ্রামার কে দিয়ে সেই ডিজাইন করা ওয়েবসাইটটিকে ডেভলপ করিয়ে নেয়। সেই প্রজেক্টগুলোর ডিমান্ড অনেক বেশি থাকে ৫০০, ১০০০ বা ২০০০ ডলার পর্যন্ত পাওয়া যায় প্রজেক্ট গুলো থেকে। কম্পিউটার প্রোগ্রামিং করলে এই ধরনের বড় বড় প্রজেক্ট এর কাজ করতে পারবেন কিন্তু সমস্ত পৃথিবীতে প্রতিনিয়তই হাজার হাজার কোম্পানি লঞ্চ হচ্ছে যাদের বাজেট এমন হাজার হাজার ডলার থাকে না। একটা কাস্টম ডিজাইন ওয়েবসাইট তৈরি করার। তাই তারা ওয়ার্ডপ্রেস এর যে প্রিমিয়াম থিম গুলো আছে ৫০ বা ৬০ ডলার এ কিনতে পাওয়া যায় সেই থিমগুলো কিনে সেগুলোর মাধ্যমে তাদের ওয়েবসাইটগুলো তৈরি করিয়ে নেয় এবং অনেক ক্ষেত্রেই দেখা যায়়, ওই কোম্পানির যে সি ই ও বা যারা ওউনার, যারা সেটা শুরু করেছে তাদের সফটওয়্যার রিলেটেড কোনো নলেজ থাকেনা। তাই যারা এই ওয়ার্ডপ্রেস এর প্রিমিয়াম থিম প্লাগ-ইন গুলোর ব্যবহার জানে তাদেরকে দিয়ে করিয়ে নেয়। ধরুন প্রিমিয়াম থিমটি কিনল ৬০ ডলার দিয়ে। আপনাকে ১০০ ডলার দিয়ে করিয়ে নিল। ১৫০ ডলার এর মাঝে তার ওয়েবসাইট তৈরি করা কমপ্লিট হয়ে গেল কিন্তু যদি একজন কম্পিউটার প্রোগ্রামার দিয়ে কাস্টম ডিজাইন ওয়েবসাইট তৈরি করতে যেত তাহলে ডিজাইন এবং ডেভেলপমেন্ট দুটো মিলে তার প্রায় দুই থেকে তিন হাজার ডলারের মতো খরচ হতো। এই দুই থেকে তিন হাজার ডলার খরচ করার মত বাজেট অনেক কোম্পানির থাকেনা।বেশিরভাগ কোম্পানির দেখা যায় ২০০ থেকে ২৫০ বা ৩০০ ডলার বাজেট থাকে একটা ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য। আর তারা এ প্রিমিয়াম থিম গুলো কিনে নেয় আপনার আমার মত ফ্রিল্যান্সার যারা আছে যারা ওয়েব প্রেসে খুবই এক্সপার্ট তাদেরকে হায়ার করে। তাদের কোম্পানির জন্য সাইটটি ডেভলাপ করিয়ে নেয়। আপনি যদি কম্পিউটার প্রোগ্রামিং যেকোনো কারণেই হোক শিখতে না পারেন তারপরও আপনি ওয়ার্ডপ্রেসের প্রিমিয়াম থিম প্লাগিন এর ব্যবহার গুলো খুব ভালোমতো শিখে নিতে পারলে সেই ছোট কোম্পানিগুলোকে সহযোগিতা করার মাধ্যমেও অনলাইনে একটা বেস্ট ক্যারিয়ার ডেভলাপ করতে পারবেন। 

৪. অন্যদের শিখা‌নো এর মাধ্যম

আপনি স্টুডেন্টদেরকে ওয়ার্ডপ্রেস শিখতে সহযোগিতা করার মাধ্যমে আর্নিং করতে পারবেন।আপনি একজন টিচার হিসেবে স্টুডেন্টকে সহযোগিতা করতে পারেন এবং সেই শেখানোর বিনিময়েও আপনি চার্জ করতে পারেন। এই কাজটি আপনি দুইভাবে করতে পারেন। আপনার বাসায় বা স্টুডেন্টের বাসায় অথবা নির্দিষ্ট কোন জায়গায় আপনার বিভিন্ন স্টুডেন্টদেরকে এই ওয়ার্ডপ্রেস শিখাতে সহযোগিতা করতে পারেন। যেন তারা একটি ক্যারিয়ার ডেভলাপ করতে পারে। এছাড়াও ইউটিউব এর মাধ্যমে আপনি হাজার হাজার লক্ষ লক্ষ মানুষ কে শেখাতে পারেন যার মাধ্যমেও আপনি ক্যারিয়ার ডেভলাপ করতে পারবেন ।

৫. ব্লগিং

আপনি ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে আপনার নিজের জন্য একটি ওয়েবসাইট সেটআপ করে নিতে পারেন এবং সেখানে আপনার জানা বিষয়গুলো নিয়ে লেখালেখি করার মাধ্যমে ব্লগিং করতে পারেন। পুরো ওয়ার্ল্ডে লক্ষ লক্ষ ব্লগার রয়েছে যারা ওয়েব সাইটে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে লেখালেখি করার মাধ্যমে দারুন ক্যারিয়ার জব করছেন ।


৬. ফিক্সট জব

অনলাইনে অনেক অনেক কোম্পানি আছে যারা ওয়ার্ডপ্রেস ডেভেলপারদের হায়ার করে তাদের প্রতিষ্ঠান ওয়েবসাইটগুলোকে মেইনটেইন করার জন্য। অনেক প্রতিষ্ঠান এ একাধিক ওয়েবসাইট থাকে। তখন সে ধরনের কোম্পানিগুলোতে আপনি একজন আইটি এক্সিকিউটিভ হিসেবে জয়েন করতে পারেন। তাদের হয়ে তাদের সমস্ত ওয়েবসাইটগুলোকে আপনি মেন্টেন করতে পারেন।তাদের ওয়েবসাইটে নতুন কনটেন্ট যুক্ত করা, নতুন কোন প্রোডাক্ট সার্ভিস আসলে তা সম্পর্কে কনটেন্ট পাবলিশ করা, নতুন ফিচারস যুক্ত করা এই বিষয়গুলো নিয়ে আপনি ফিক্সট জব করতে পারেন।একজন ওয়েব ডেভেলপার হিসেবে এধরনের কোম্পানি বা ক্লায়েন্ট বিভিন্ন ফ্রিল্যান্সার মার্কেটপ্লেস এর মাধ্যমে আপনি পেতে পারেন। ফ্রিল্যান্সার, ফাইবার, আপওয়ার্ক এই মার্কেটগুলো তে কাজ করার মাধ্যমে বিভিন্ন ক্লায়েন্টের সাথে আপনি একটা রিলেশন বিল্ডআপ করে ফেলতে পারলে সেই ক্লায়েন্টরা একসময় আপনাকে ফিক্সট জব অফার করতে পারে তাদের কোম্পানির জন্য ফিক্সট ওয়েব ডেভেলপার হিসেবে কাজ করার জন্য। এমন অনেকেই আছেন যারা ফ্রিল্যান্সার হিসেবে কাজ শুরু করেছেন কিন্তু একটা সময়ে ক্লায়েন্টের সাথে ভালো রিলেশন হয়ে যাওয়ার ফলে তারা ফিক্সড জব পেয়ে যান ঐ কোম্পানির মধ্যে। আপনার যদি ফিক্সট জব ভালো লাগে আপনি ওয়ার্ডপ্রেস এ ডেভেলপার হিসেবে বিভিন্ন কোম্পানিতে জব করতে পারেন।


তাহলে আশা করি জানা গেল ওয়ার্ডপ্রেস দিয়ে ক্যারিয়ার গঠনের অনেক উপায় আছে কিন্তু আপনার উপর নির্ভর করবে আপনি কোন উপায়ে আপনার জন্য একটি ক্যারিয়ার ডেভলপ করতে চান।

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

Betblog24.com