Best Blog 24 https://www.bestblog24.com/2021/08/youtube-short-.html

ইউটিউব শর্টস কি? YouTube shorts-এর সুবিধা নতুন চ্যানেল ভাইরাল? পড়ুন বিস্তারিতঃ

অনেক বড় ভিডিও না করে শুধু মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও দিয়ে যদি আপনি সাবস্ক্রাইবার আনতে পারেন তাহলে ব্যাপারটা কেমন হয়? আপনি মনে হয় ভাবছেন এ কেমন অবাস্তব কথা! কিন্তু এটা কোন কাল্পনা নয়। আজকের পুরো আর্টিকেলটি  ভালোভাবে পড়লেই আপনি বুঝতে পারবেন কি করে এই অসম্ভবকে সম্ভব করা যায়। 

প্রচারেই প্রসার। কথাটি যেকোনো উদ্যোক্তাদের জন্য একটি বেদবাক্য। বর্তমানে ইউটিউব পৃথিবীর সকল দেশেই অনেক জনপ্রিয়। তাই হাজার হাজার ইউটিউব চ্যানেলের মধ্যে আপনার চ্যানেলটি তখনই বেশি বেশি সাবস্ক্রাইবার পাবে যখন আপনি সেটির ঠিকমতো প্রচার করবেন। কিন্তু যদি আপনি ইউটিউব এ চ্যানেল খোলার পরে হঠাৎ বিভিন্ন ব্যস্ততার কারণে নিয়মিত ভিডিও আপলোড করতে পারছেন না। তাহলে নিশ্চয়ই আপনার চ্যানেলটির তখন ঠিকমতো প্রচার হবে না। ইউটিউব এর পেজ থেকে আপনিও ধীরে ধীরে হারিয়ে যাবেন। তার উপর আপনার নিশ্চয়ই ইউটিউবের জন্য বিশাল বড় ভিডিও করার পরে সেটি এডিটিং করতেও অনেক কষ্ট হয়। এই সব কিছু সমাধান করার জন্যই ইউটিউব নিয়ে এসেছে YouTube shorts নামে একটি নতুন ফিচার। shorts আপনার ইউটিউব সংক্রান্ত সমস্যাগুলোকেও ছোট এবং সহজ করে দিবে। তাহলে চলুন বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক ইউটিউব এর এই নতুন ফিচার সম্পর্কেঃ 


YouTube Shorts কি?,কিভাবে শর্টস ভিডিও বানাবেন,ইউটিউব শর্টস ভিডিও কিভাবে ব্যবহার করবেন,ইউটিউব শর্টস আপনার যা কিছু জানা দরকার,YouTube shorts কি ?এটা কি Tik-Tok এর মতো শর্ট ভিডিও অ্যাপ

আরও পড়ুনঃ

YouTube shorts কি

YouTube shorts নাম পড়েই নিশ্চয়ই কিছুটা আপনারা অনুমান করে ফেলেছেন। YouTube shorts হল এমন একটা ফিচার যেটির সাহায্যে আপনি ৫৯ সেকেন্ডের কম ভিডিও ইউটিউবে ছাড়তে পারবেন। রেগুলার ইউটিউব ভিডিও আপলোড করার জন্য ভালোভাবে ভিডিও রেকর্ড এবং এডিটিং এর প্রয়োজন হলেও YouTube shorts এর মাধ্যমে সরাসরি আপনার মোবাইলের ইউটিউব অ্যাপ থেকে আপলোড করতে পারবেন। যা যেকোনো ভিডিও কন্টেন মেকারের জন্য একটি আশীর্বাদ। টিক টক, লাইকি ইউজারদের জন্য এটা আরো বেশী খুশীর সংবাদ। কারণ এ ফিচারটি টিকটক, লাইকির মতই। ছোট ভিডিওগুলো তৈরি করতে আপনি যেমন মজা পাবেন তেমনিভাবে দর্শকরাও মজা পাবে। এই ফিচারটি আনার মূল কারণ এটিই যে, যে সব দর্শক ছোট ভিডিও দেখে বেশি তাদেরকে আকৃষ্ট করে ইউটিউবের জনপ্রিয়তা আরো বৃদ্ধি করা। 

YouTube shorts এর বৈশিষ্ট্য

আপনার নিশ্চয়ই এখন জানতে ইচ্ছা করছে YouTube shorts ফিচারটি কেমন, এর কি কি ফাংশন আছে। নিম্নে সেগুলো দেওয়া হলঃ 

  • সময়সীমাঃ YouTube shorts ভিডিওকে অবশ্যই ৫৯ সেকেন্ড বা তার কম হতে হবে। তবে সর্বনিম্ন কত সেকেন্ড সেটি ইউটিউব এখনও ঠিক করে দেয় নি। এর বেশি হলে YouTube shorts হিসেবে পরিচিতি পাবে না। 
  • ডাইমেনশনঃ আপনার ভিডিওগুলো কে অবশ্যই একটি নির্দিষ্ট ডাইমেনশনের হতে হবে।  ১০৮০ * ১০৮০ পিক্সেল এর perfect square হতে হবে। এর বেশি পিক্সেল এর ভিডিও shorts ভিডিও হিসেবে বিবেচিত নাও হতে পারে।  তাই সব সময় চেষ্টা করবেন ডাইমেনশনটাকে বজায় রাখার।
  • Multi Segment Camera: এখানে আপনি পাবেন একটি Multi Segment Camera। যার সাহায্যে আপনি মাল্টিপল ভিডিও ক্লিপস একসাথে জোড়া লাগাতে পারবেন। 
  • Record with Music Library: আপনি মিউজিক লাইব্রেরি থেকে নিয়ে আপনার রেকর্ড করা ভিডিওতে যেকোনো মিউজিক ব্যবহার করতে পারবেন।  
  • Speed Controls: আপনার রেকর্ড করা ভিডিওটির স্পীড নিয়ন্ত্রণ করতে পারবেন এই ফিচারটির মাধ্যমে। 
  • Timer & Countdown: ভিডিও রেকর্ড করার জন্য timer & countdown ব্যবহার করতে পারবেন। 
  • Slow Motion Effect: Slow Motion ভিডিওর জন্য আপনি এটি ব্যবহার করতে পারবেন। 
  • Shorts icon: ব্যবহারকারীদের ভালো সুবিধার জন্য ইউটিউব মোবাইল হোমপেজে Shorts icon যুক্ত করেছে। যা আপনি ‘Home’ and ‘Create’ এর মাঝে খুঁজে পাবেন। 

 YouTube shorts প্রথমে বেটা ফেজ হিসেবে ইন্ডিয়াতে চালু করা হয়। যদিও দুই মাস পরে 26 টি দেশে এটি চালু করা হয় তবুও কোন কোন ফিচারে প্রথম দিকে আপনার সমস্যা দেখা দিতে পারে। 

YouTube shorts এর সুবিধাঃ 

YouTube shorts ফিচারটি আনার পর থেকেই এর ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েই চলছে। প্রায় ৬.৫ বিলিয়ন মানুষ বর্তমানে এটি ব্যবহার করছে।   আপনি হয়তো ভাবছেন কেন? কারণ অন্যান্য শর্ট ভিডিও অ্যাপগুলোর থেকে এই ফিচারটি আপনাকে আরও অনেক বেশি সুবিধা দিবে। কিছু সুবিধা নিচে দেওয়া হলঃ

  •  আপনি যদি কয়েক সেকেন্ডের মজার ভিডিও আপলোড করেন তাহলে দর্শকরা ওটা দেখে মজা পাবেন। আর যেহেতু YouTube shorts এর ভিডিওতে সাবস্ক্রাইব,  লাইক, অনলাইক কমেন্ট শেয়ার এইসব অপশনও থাকে। সেহেতু দর্শকরা আপনার ওই ছোট্ট ভিডিওটি দেখে আপনার চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করতে পারবে। এতে আপনার চ্যানেলের প্রচার এর সাথে সাথে সাবস্ক্রাইবারও বৃদ্ধি পাবে এবং আপনার সময়ও কম ব্যয় হবে।
  •  সাধারণত ইউটিউবে সকল আর্টিস্ট তাদের গান আপলোড করে। এই সুবিধার জন্য আপনি আপনার মিউজিক লাইব্রেরি থেকে ভিডিওতে বিখ্যাত, পুরাতন, নতুন, যে কোন গান যুক্ত করতে পারবেন। কোন প্রকার কপিরাইট সমস্যা ছাড়াই। এই সুবিধাটি আপনি অন্য কোন অ্যাপে খুঁজে পাবেন না। 
  • আপনি চাইলে ইউটিউব এর যাদের সাবস্ক্রাইবার বেশি তাদের সাথে পার্টনারশিপে  মাত্র কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও করে YouTube shorts তে আপলোড করতে পারবেন। এতে সেই মানুষটার সাবস্ক্রাইবারাও আপনাকে চিনবে এবং আপনার চ্যানেলটিও গ্রো করবে।
  • ভিডিও আপলোড এর সময় এখানে অনেক রকম filters, effects রয়েছে। যেগুলো ব্যবহার করে আপনি আপনার ভিডিওটিকে একটি প্রফেশনাল রূপ দিতে পারবেন।
  • যেহেতু ভিডিওগুলো ইউটিউব আপনার search এবং watch history এর উপর ভিত্তি করেই আপনাকে সাজেস্ট করে থাকে। সেহেতু আপনি আপনার পছন্দমত ভিডিও সহজেই দেখতে পারবেন। 

YouTube shorts যেভাবে বানাবেন

আপনার হয়তো এখন YouTube shorts ভিডিও বানানোর ইচ্ছা হচ্ছে। সেজন্য তো অবশ্যই আপনাকে YouTube shorts ভিডিও বানানোর প্রক্রিয়া জানতে হবে। তাহলে চলুন জেনে নেই কি করে আপনি YouTube  shorts ভিডিও বানাবেনঃ 

  • প্রথমে আপনার মোবাইলের ইউটিউব অ্যাপটি আপডেট করে নিন। আপডেট করার সাথে সাথে YouTube shorts ফিচার যুক্ত হয়ে যাবে। 
  • তারপরে ইউটিউবে Sign in করে মাঝখানের প্লাস চিহ্ন বা (create) চিহ্ন তে ক্লিক করুন। 
  • ৩টি অপশনের মধ্যে create a short অপশন ক্লিক করুন। 
  • শর্টস ভিডিও রেকর্ড করা শুরু করুন। ভিডিওটিকে অবশ্যই ভার্টিক্যাল মুডে করা হতে হবে। আপনি যদি ল্যান্ডস্কেপে করা কোন ভিডিও সিলেক্ট করেন তবে সেটা কিন্তু  শর্ট ভিডিও হিসেবে আপলোড হবে না। ভিডিও শেষে পছন্দমত filters, effects, Music যোগ করুন। 
  • Next এ ক্লিক করে ভিডিওটি preview করুন এবং ডিটেইলস অ্যাড করার জন্য আবার Next এ ক্লিক করুন।
  • ম্যাক্সিমাম ১০০ ক্যারেক্টারের টাইটেল সিলেক্ট করে শেষে  #shorts ব্যবহার করবেন। এরপরে ডেসক্রিপশন দিন এবং শেষে  #shorts ব্যবহার করবেন 
  • সর্বশেষে অডিয়েন্স সিলেক্ট করে আপলোড করে দিন। 

 উপরিউক্ত প্রক্রিয়ায় আপনি খুব সহজেই YouTube shorts ভিডিও আপলোড করতে পারবেন। তবে মনে রাখবেন ভিডিওগুলো আপনার ইউটিউব চ্যানেলে গিয়েই আপলোড হবে। 

YouTube shorts থেকে ইনকাম করা যাবে ?

YouTube Shorts বর্তমানে এক্সপেরিমেন্ট পর্যায়ে আছে। তাই এই ভিডিওগুলোতে গুগল কোন অ্যাড শো করে না এবং ইউটিউব প্রিমিয়াম সাবস্ক্রিপশন রেভিনিউ পাওয়ার কোন সম্ভাবনা নেই। এই ভিডিও YouTube’s Partner Program Eligibility পেতেও আপনাকে সাহায্য করবে না। মানে ইনকামের জন্য যেই 4000 ঘন্টা ওয়াচ টাইম এবং এক হাজারটা সাবস্ক্রাইবার দরকার পড়ে। সেখানে আপনার Shorts ভিডিও থেকে যে ওয়াচ টাইম পাবেন তা এখানে যুক্ত হবে না। তবে ভিডিওর সাবস্ক্রাইবাররা আপনার চ্যানেলের সাবস্ক্রাইবার হিসেবে যুক্ত হবে। তাই YouTube shorts শুধুমাত্র আপনার সাবস্ক্রাইবার এবং আপনার চ্যানেলের রিচ বাড়াতে সাহায্য করবে। তবে ভবিষ্যতে YouTube Shorts ভিডিওতে ইনকাম করার উপায় যুক্ত হতে পারে।

তাহলে আজকেই নিজের সাবস্ক্রাইবার বাড়াতে ব্যস্ত সময়ের মাঝে কয়েক সেকেন্ডের ভিডিও বানিয়ে ফেলুন এবং YouTube shorts আপলোড দিন। বর্তমানে সাবস্ক্রাইবার বাড়ানোর এই প্রতিযোগিতায় আপনি কেন পিছিয়ে থাকবেন? 

অন্যদের সাথে শেয়ার করুন

0 Comments

দয়া করে নীতিমালা মেনে মন্তব্য করুন ??

Betblog24.com