চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি ? | 2022

আপনি কি জানেন এবছর চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি? যদি জেনে না থাকেন তবে আজকের এই আর্টিকেলটি পড়তে পারেন। আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি পড়লে আপনি চীনের বাজার নাম্বার ওয়ান কিছু মোবাইল ব্র্যান্ড সম্পর্কে অনেক ধারণা পাবেন। নতুন নতুন আবিষ্কারের জন্য চীন বরাবরের মতই অনেক জনপ্রিয় ছিল। চীন সবসময় চেষ্টা করে প্রযুক্তির নতুন নতুন আবির্ভাব ঘটানাোৱ। চীন নামিদামি অনেক ব্র্যান্ডের হোম নির্মাণের জন্য সুপরিচিত। চীনের রয়েছে নিজস্ব কিছু পণ্যের ব্র্যান্ড যারা কিনা গুণগত মানের দিক দিয়ে দিব্যি প্রতিযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে দিনের পর দিন। চীনের নামি দামি ফোনের ব্র্যান্ডগুলো এখন অন্যান্য ব্র্যান্ডের ফোনের সাথে তীব্র প্রতিযোগিতায় মেতে উঠেছে।

এসব ফোনের দামও আবার কম নয়। আজকে আমরা মূলত আলোচনা করব চীনের বাজারে বেশ কিছু নামী দামী মোবাইল ব্র্যান্ড সম্পর্কে। এসব ব্রান্ডের ফোন গুণগত মানের দিক থেকে যেমন এগিয়ে রয়েছে তেমন এদের দামও বেশ। চলুন তাহলে নিচে চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি সে সম্পর্কে বিস্তারিত জেনে নেওয়া যাক। আশা করছি সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি আপনি মনোযোগ সহকারে পড়বেন এবং শেষ পর্যন্ত আমাদের সাথে ধৈর্য সহকারে থাকবেন।

চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি ?

 

চীনের বাজারে 1 নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি

চীনের একটি প্রতিবেদন থেকে জানা যায় যে ২০১৬ সালের শেষের দিক থেকেই চীনে খুব দ্রুত গতিতে বেড়ে চলেছে স্মার্টফোনের ব্যবহার। প্রতিনিয়তই আপডেট হচ্ছে নিত্য নতুন সব মোবাইলের অ্যাপস আর এজন্যই আপডেটেড মোবাইল এর প্রয়োজনীয়তা ও বেড়ে গেছে। আপডেটেড বিভিন্ন অ্যাপস ব্যবহারের জন্য স্মার্টফোনের ব্যবহার কাবিরা প্রতিনিয়ত খুঁজে চলছে বিভিন্ন আপডেটেড স্মার্টফোন ডিভাইসের। সময়ের সাথে সাথে যুগের সাথে তাল মিলিয়ে চলার জন্য বিভিন্ন আপডেট স্মার্টফোন ব্যবহার করতে সবাই চায়। মূলত আপডেটের জন্যই চীন দেশের বিভিন্ন প্রান্তিক শহরগুলিতে অপ্পো এবং হুয়াওয়ে এর মত ব্রান্ডের ফোন গুলো বেশি পরিমাণে ব্যবহৃত হচ্ছে। ২০১৬ সালে শুধুমাত্র চীনে অপ্পো কোম্পানির বিভিন্ন ডিভাইস ৭ কোটি ৮৪ লাখ বিক্রি হয়েছে। আর তাই অপ্পো কোম্পানির ফোন 2016 সালে চীনের ফোন বাজারে শীর্ষ স্থান অবস্থান করেছে। বর্তমানে গবেষণা প্রতিষ্ঠান আইডিসি প্রকাশিত এক প্রতিবেদনে হতে জানা গেছে যে অপ্পো কোম্পানী যে স্মার্ট ফোন বিক্রি করেছে তা চীনের মোট স্মার্টফোন বিক্রির প্রায় ১৬.৮ শতাংশ।

ওই প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে আরো জানা যায় যে ওই বছর অ্যাপেল ও শাওমি ব্রান্ডের মত ফোনগুলো চিনির সিরা প্রথম দ্বিতীয় তৃতীয় স্থানে জায়গা পায়নি। ওই বছর চীনের স্মার্টফোন তালিকার দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে ছিল হুয়াই এবং ভিভো কোম্পানির স্মার্টফোন। চীনের বাজারে ওই দুটি ব্রান্ডের শেয়ারের পরিমাণ বিগত বছরে ছিল ১৬.৪ ও ১৪.৮। হুয়াই ব্রান্ড এবছর চীনের বাজারে প্রায় তার ডিভাইসের সাত কোটি 66 লাখ ডিভাইস বিক্রি করেন। আরব কোম্পানি প্রায় ৬ কোটি ৯২ লাখ ডিভাইস সে বছর চীনে বিক্রি করে। অপ্পো হুয়াওয়ে এবং ভিভো এ তিনটি কোম্পানির সে বছর চীনেৱ স্মার্টফোন বাজারে প্রায় অর্ধেক রাজত্ব করেছে। তবে চীনের শীর্ষ পাঁচটি ফোনের তালিকায় 4 এবং 5 নাম্বার স্থানে ছিল অ্যাপেল ও শাওমি ফোন। এটাতো ছিল ২০১৬ সালের চীনের স্মার্টফোনেৱ তালিকা সেরা পাঁচটি ফোনের প্রতিবেদন।

তবে এ বছর চীনের বাজারের নাম্বার ওয়ান সেরা মোবাইল ব্র্যান্ড হয়েছে ওয়ান প্লাস মোবাইল। আর তারপর স্থান দখল করে নিয়েছে অপো রিয়েলমি শাওমি এবং হুয়াওয়ে। প্রতিবছর মূলত ফোনের বাজার ওঠানামা করে মোবাইলের নতুন মডেলের উপর ভিত্তি করে। যেমন এবছর চীনের বাজারে এক নম্বর মোবাইল হিসেবে ওয়ান প্লাস মোবাইল ব্র্যান্ড পরিচিত পেয়েছে তাদের নতুন মডেল ওয়ানপ্লাস 8 প্রো মডেল ফোনের কারণে। এছাড়াও আরো যে যে ব্রান্ডের মোবাইল গুলো এবছর চীনের মোবাইল বাজারে শীর্ষস্থান দখল করেছে সেগুলোৱ তালিকা নিচে দেয়া হয়

  • OnePlus 8 Pro.
  • Oppo Find X2 Pro.
  • Realme X50 Pro.
  • Xiaomi Mi 9.
  • Realme X3 SuperZoom.
  • OnePlus 8.
  • Oppo Reno 10X Zoom.
  • Huawei P30 Pro.

চীনে তৈরিকৃত অসংখ্য স্মার্ট ফোন গুলোর ভিতরে নামি দামি কিছু ফোন

আধুনিক অনেক মডেলের ফোন নির্মিত হয়ে থাকে চীনে। পুরো বিশ্ব জুড়ে এখন চীনে তৈরিকৃত ফোন গুলো ছেয়ে গেছে। চীনের তৈরি অনেক নামিদামি ফোন এখন বাজারে পাওয়া যায়। এছাড়াও চীনের অনেক ক্যাটাগরিৱ ফোন বাজারে পাওয়া যায়। চীনের রয়েছে নিজস্ব বেশকিছু ব্রান্ডের ফোন। এসব ব্র্যান্ডগুলো তাদের ফোনের নিখুঁত এবং গুণগত মান দিয়ে পুরো বিশ্বের ফোনের সাথে প্রতিনিয়ত তীব্র প্রতিযোগিতা চালিয়ে যাচ্ছে। আবার চীনের তৈরি বেশ কিছুক্ষণ গুনগতমান দিয়ে ভালো হলেও দাম অনেক তাই সস্তায় পাওয়া যায় বলে অনেকের পছন্দের তালিকায় রয়েছে এগুলো। নীচে আমি বেশ কয়েকটি চীনের তৈরি ব্র্যান্ডেৱ ফোন নিয়ে আলোচনা করেছি যেগুলোর দাম একটু বেশি হলেও গুণগতমান অনেক ভালো।

Gionee Marathon M5 Plus

চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি ? | 2022

জিওনি ম্যারাথন এম 5 প্লাস ফোন টি তৈরি করেছে চীনের বিখ্যাত প্রযুক্তি নির্মাতা জিওনি। এই ফোনটির প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে এর মধ্যে থাকা ব্যাটারি যেটি কিনা 5020 এমএইচ। এছাড়া ফোনটিতে রয়েছে 5.1 অ্যান্ড্রয়েড ললিপপ। এই ফোনের মধ্যে থাকার ডিসপ্লে ফুল এইচডি যার পরিমাপ 6 ইঞ্চি। 3 gb র‌্যাম 13 মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা এবং 5 মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা নিয়ে তৈরি হয়েছে জিওনি ম্যারাথন এম 5 প্লাস ফোন। এছাড়াও এ ফোনটিতে রয়েছে 64 gb ইন্টার্নাল মেমোরি এবং 6753 সিপিইউ মিডিয়াটেক।

OPPO F1 Plus

চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি ? | 2022

 

ইতিমধ্যে অপ্পো কোম্পানির আনা বিভিন্ন ফোন চীনের বাজারে বেশ সাড়া ফেলেছে। তারমধ্যে বিগত এপ্রিলে চীনের বাজারে অপ্পো কম্পানি রিলিজ করেছে এফ ওয়ান সিরিজের একটি ফোন যেটি কিনা এখন চীনের বাজারে বেশ সারা ফালানো একটি স্মার্টফোন। অপ্পো f1 প্লাস ফোনটিতে বেশকিছু সারা ফালানোর মধ্য ফিচারস রয়েছে। এই ফোনটিতে রয়েছে 16 মেগাপিক্সেল ব্যাক ক্যামেরা ফুল এইচডি 5.5 ইঞ্চির একটি ডিসপ্লে এবং এই ফোনে ব্যাটারি হচ্ছে 2850m এইএচ। যা কিনা সত্যিই অবাক করার মত। এছাড়া এই ফোনটিতে আরও রয়েছে ৪ জিবি র‌্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টারন্যাল মেমোরি। অক্টো-কোর মিডিয়াটেক হেলিো পি ১০ প্রসেসর ও রয়েছে অপ্পো f1 প্লাস ফোনটিতে।

XIAOMI Mi 5

চীনের বাজারে ১ নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি ? | 2022

চীনের বাজারে বর্তমানে প্রতিযোগিতার মধ্যে এগিয়ে রয়েছে আরও একটি ব্রান্ড যেটি হচ্ছে জিয়াওমি। জিয়াওমি এম আই 5 ফোনটি বর্তমানে চীনের মানুষদের কাছে পছন্দের শীর্ষস্থানে রয়েছে। এই ফোনের ডিসপ্লে হচ্ছে 5 ইঞ্চি ফুল এইচডি। এছাড়া ফোনটিতে রয়েছে ৩ জিবি র‌্যাম, ৩২ জিবি ইন্টারন্যাল মেমোরি, প্রসেসর কোয়াড-কোর কোয়ালকম স্নাপড্রাগন ৮২০। এই ফোনের ক্যামেরা হচ্ছে 16 মেগাপিক্সেল সনি আইএমএক্স 298। তা ছাড়াও রয়েছে 4 মেগাপিক্সেল এর একটি ফ্রন্ট ক্যামেরা।

পরিশেষে,

চীনের বাজারে 1 নম্বর মোবাইল ব্র্যান্ড কোনটি? আশা করছি এই প্রশ্নের উত্তর আপনারা খুব ভালভাবেই বুঝে গিয়েছেন ইতোমধ্যে। এখনো যদি আপনারা এই প্রশ্নের উত্তর ভালোভাবে বুঝে না থাকেন তাহলে আমি আপনাকে রিকোয়েস্ট করব সম্পূর্ণ আর্টিকেলটি আরেকবার মনোযোগ সহকারে পড়ার জন্য। ধৈর্য সহকারে আমাদের সাথে এতক্ষণ থাকার জন্য আপনাকে অনেক ধন্যবাদ। আশা করছি আজকের এই আর্টিকেলটি নিয়ে আপনাদের মনে আর কোন প্রশ্ন নেই। তাই আমি আজ এখানেই বিদায় নিচ্ছি। খুব শীঘ্রই আবার চেষ্টা করব আপনাদের সামনে নতুন কিছু নিয়ে হাজির হওয়ার। এরপর কোন বিষয়টি নিয়ে আপনাদের জানার ইচ্ছা রয়েছে তা আমাদের কমেন্ট করে জানাতে পারেন। আমরা চেষ্টা করব সেই বিষয়টি নিয়ে লিখার।

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Scroll to Top